সুখী হতে এড়িয়ে চলবেন যে বিষয়গুলো

23

যতোই বলা হোক না কেন সুখ আপেক্ষিক বিষয় এবং সুখী থাকার মূলমন্ত্র আমাদের নিজেদের কাছেই রয়েছে তারপরও বিষয়টি অনেকেই মেনে নিতে পারেন না। সুখ খুঁজতে থাকেন বিভিন্ন কাজে এবং ছুটে চলতে থাকেন সুখে পেছনে। ফলে আরও বেশি দূরে সরে যেতে থাকে সুখ নামক মরীচিকা। সাইকোলজিস্টদের মতে, মানুষ যদি নিজেকে সুখী হিসেবে মেনে নিতে পারেন, তবেই তার কাছে থাকে সুখ। নতুবা নয়। এরপরও অনেকেই ছুটে চলবেন সুখে পেছনে। নিজের হাতে যে মূলমন্ত্র রয়েছে তার প্রতি নজর দেবেন না অনেকেই। কাজগুলো করে নিজে সুখে বাঁধা তৈরি করবেন নিজেই। যদি সত্যিকার অর্থে চিরকালের জন্য সুখী হতে চান তাহলে কিছু কাজ এড়িয়ে চলুন। দেখুন আপনার হাতেই রয়েছে সুখে থাকার মূলমন্ত্র। চেষ্টা করতে তো দোষ নেই। করেই দেখুন না।

১) হিংসা, ঈর্ষা যে কোনো সম্পর্ককে মুহূর্তের মধ্যে বিষাক্ত করে তুলতে পারে। মনটাকেও করে তোলে বিষাক্ত। এতে করে সুখ হারায় দূরে। তাই হিংসা, ঈর্ষা জীবন থেকে বাদ দিন।

২) আপনার কোনো কিছুর প্রতি অত্যধিক আশা আপনার সুখে অন্তরায়। যে যতো কম আশা করেন জীবন থেকে তিনি ততোই সুখী মানুষ।

৩) নিজের জীবনের অতীত অংশটিকে আঁকড়ে ধরে রাখা বোকামি বাদে কিছুই নয়। এতে করে সামনে এগিয়ে চলতে পারবেন না একেবারেই। সুখের মুখও দেখবেন না। তাই অতীত থেকে শিক্ষা নিন। অতীত ধরে রাখবেন না মনের মাঝে।

৪) কোনো কিছুর জন্য আফসোস করবেন না জীবনে। আফসোস করার অভ্যাসটি মনের মধ্যে অপূর্ণতার জন্ম দেয় যা সুখী হতে দেয় না।

৫) আরেকজনের মধ্যে নয় নিজের মধ্যে খুশি খুঁজে নিন। কারণ পৃথিবীতে কেউই এবং কোনো কিছুই চিরজীবনের জন্য আপনার পাশে থাকবে না। আর তার মাঝে যদি আপনার খুশি থাকে তাহলে সে যাওয়ার সাথে আপনার খুশিও চলে যাবে। এই এই কাজটি করবেন না।

৬) যে মানুষটি আপনাকে সুখে থাকতে দিচ্ছেন না তাকে জীবন থেকে মুছে ফেলাই সবচাইতে বুদ্ধিমানের কাজ।

৭) আপনার অযথা ভয় আপনার মূল খুশিটাকে কেড়ে নিতে পারে মুহূর্তের মধ্যেই। তাই এক সৃষ্টিকর্তা ছাড়া কাউকে ভয় করতে যাবেন না।

৮) স্বার্থপরের মতো নিজের জন্যই সব কিছু করার মধ্যে আসলে সুখ খুঁজে পাবেন না। প্রবাদ রয়েছে না, ‘ভোগে নয়, ত্যাগেই সুখ’। কথাটি অত্যন্ত সত্য।

৯) আপনার অসৎ মনোভাব আপনাকে কখনো সুখে থাকতে দেবে না। আপনি যদি সৎ না হন তাহলে মনের কোণের নিজের অসৎ চিন্তা আপনাকেই কুঁড়ে কুঁড়ে খেতে থাকবে চিরকাল। তাই অসৎ পথ এড়িয়ে যান।

১০) আপনার অতিরিক্ত চিন্তা করার স্বভাবটি আপনার সুখের অন্তরায়। অতিরিক্ত চিন্তা মানেই অতিরিক্ত আশা এবং সেই সাথে আশা পূরণ না হওয়ার হতাশা যা আপনাকে করে তোলে বিষণ্ণ। তাই খুব বেশি আগ বাড়িয়ে চিন্তা না করাই ভালো।

সূত্রঃ lifehack.org

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here