Home > জীবনধারা > সহজে পড়া মনে রাখার কৌশল

সহজে পড়া মনে রাখার কৌশল

কেউ কেউ আছেন যারা কোন বিষয়ে একবার পড়লেই তা দীর্ঘদিন পর্যন্ত মনে রাখতে পারেন। অনেকে আবার হাজারবার পড়লেও বেশিক্ষণ মনে রাখতে পারেন না। অনেকে আবার পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই সব কিছু ভুলে যান। সাধারণত লেখাপড়ায় চাপ বেড়ে গেলে কিংবা মুখস্ত করে পরীক্ষা দিতে গেলে এ সমস্যা হয়। এ সময় অতিরিক্ত টেনশনের কারণে তারা যা পড়েছেন তা বেমালুম ভুলে যান। ফলে বেশিরভাগ সময়ই তারা পরীক্ষায় ফেল করেন। কাজেই পরীক্ষায় পাস করতে চাইলে দীর্ঘক্ষণ পড়া মনে রাখার বিকল্প নেই। এমন কিছু কাজ আছে যা করলে সহজেই যে কোন বিষয় স্মৃতিতে ধারণ করা সহজ হয়।

জেনে নিন পড়া মনে রাখতে অবলম্বন করবেন যেসব কৌশল-

মনোযোগ তৈরি করুন
যে কোন বিষয়ের উপর পূর্ণ মনোযোগ তৈরি করুন। যেহেতু মন মানুষের সব কাজকে নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। কাজেই পড়তে গেলে প্রথমেই মনটাকে আগে পড়ার উপর নিবন্ধ রাখুন। এবার মনোযোগ দিয়ে বিষয়টা বুঝে বুঝে পড়ার চেষ্টা করুন। আর মনোযোগ সহকারে বুঝে পড়লে এমনিতেই মনে থাকবে।

মেডিটেশন করুন
মস্তিষ্ককে যাবতীয় চিন্তা ভাবনা থেকে দূরে রাখার একমাত্র উপায় হলো মেডিটেশন করা। এটি শুধু ব্রেনকে সতেজ ও চিন্তামুক্ত করে তোলে না, একইসঙ্গে কাজ করার ক্ষমতাকে হাজার গুণ বাড়িয়ে দেয়। স্মৃতিশক্তি বাড়াতে চাইলে নিয়মিত এই ব্যায়ামটি করার বিকল্প নেই।

জটিল বিষয়গুলো বারবার পড়ুন
সব পড়াই যে মনে রাখা সহজ হবে এমনটি নয়। কোন বিষয়ে জটিল কোন টপিক থাকতেই পারে। সেক্ষেত্রে ভয় না পেয়ে বিষয়গুলো বারবার পড়ুন এবং কী বলেছে তা মনে রাখার চেষ্টা করুন। কাজের ফাঁকে যখনই সময় পাবেন তখন ওই বিষয়টি মনে করার চেষ্টা করুন। এভাবে নিয়মিত করলে দেখবেন কঠিন বিষয়ও আপনার কাছে অনেক সহজ মনে হবে।

বাস্তবের সঙ্গে মিলিয়ে পড়ুন
বাস্তব কোন বিষয়ের সঙ্গে মিলিয়ে যে কোন পড়া পড়লে তা দীর্ঘদিন পর্যন্ত মনে থাকে। তাই মনে রাখতে এভাবেই পড়ুন না।

কাউকে বোঝানোর মতো করে পড়ুন
পড়া মনে রাখতে বুঝে পড়ার বিকল্প নেই। এজন্য পড়ার সময় এমনভাবে পড়ুন যাতে বিষয়টি আপনি অন্যকে বুঝাচ্ছেন। এভাবে পড়লে দেখবেন বিষয়টা আপনার মাথার মধ্যে ভালোভাবে গেঁথে গেছে। এতে অনেক দিন পর্যন্ত বিষয়টা আপনার মনে থাকবে।

কোন বিষয় মনে রাখতে না পারলে পরীক্ষায় ফেল অনিবার্য। কাজেই ফেল এড়াতে উপরোক্ত কৌশলগুলো অবলম্বন করুন। তাতে বিষয়টি অনেকদিন পর্যন্ত মনে রাখার পাশাপাশি পাশও করবেন।

তথ্যসূত্র: ওয়েবসাইট