Home > বিনোদন > শপিং এ বিদেশের উপর অতি আগ্রহ দেখানো আমার না-পসন্দ

শপিং এ বিদেশের উপর অতি আগ্রহ দেখানো আমার না-পসন্দ

পারফিউমের গন্ধ নেশা জাগায়। কোন ধরনের পারফিউম কেনেন তিনি? আর শাড়ি-ই বা কোন ধরনের পছন্দ? সেই সবই জানালেন শ্রাবন্তী। শপিং করতে ভালোবাসেন। কিন্তু শুধু শপিং করার উদ্দেশ্যে কোথাও যান এমনটা নয়। বিশেষ কোনও শপিং ডেস্টিনেশনও নেই। আমি কলকাতা, মুম্বই, দিল্লি, চেন্নাই, ব্যাংকক, থাইল্যান্ড-সব জায়গা থেকেই শপিং করি। কলকাতায় সাধারণত বিশেষ দরকারি জিনিসের জন্য সাউথসিটি, ফোরাম, আর এখন কোয়েস্ট মলে যাই। তবে দেশের অন্য শহরগুলোতে বেশ ভালো ভালো ব্র্যান্ডের পোশাক, মেক-আপের সরঞ্জাম, জুতো আর পারফিউম পাওয়া যায়। তাই বিদেশে যাওয়ার খুব একটা দরকার পড়ে না। হ্যাঁ, শ্যুটিং বা ঘুরতে কোথাও গেলে সেখানকার মার্কেটে গিয়ে পছন্দসই জিনিস কিনি।

কিন্তু শপিং করতে হবে, বিদেশে না হলে স্টেট্যাস মেনটেন হবে না, এটা আমি মানি না। নিজের দেশেই যখন সব পাচ্ছি, বিদেশের উপর অতি আগ্রহ দেখানো আমার না-পসন্দ। কিন্তু এমন কোনও কিছুই কি নেই, যার জন্য তাঁর আগ্রহের রকমফের হয়? না, নেই। আমার তো ব্র্যান্ড নিয়েও খুব একটা নাক-উঁচু ব্যাপার নেই। এটা আমার পছন্দের ব্র্যান্ড। এর বাইরে কিছু পড়ি না, এমন কখনওই বলি না। ব্র্যান্ডেড পোশাক পড়ি, তবে সেটা যে কোনও ব্র্যান্ডের পছন্দের পোশাক হলেই হল।

পোশাকের ক্ষেত্রে প্রথম পছন্দ সব সময় শাড়ি৷ শিফন, জর্জেট তাঁর পছন্দের তালিকায় সবার উপরে থাকে। আর মায়ের থেকে জামদানী, তসর শাড়ি নিয়ে পড়াতেই তাঁর আনন্দ। তিনি মনে করেন, শাড়িতে মেয়েদের সবচেয়ে সেক্সি লাগে বলেই আমার মনে হয়। আমি শাড়ি পরতে ভালোওবাসি, ক্যারিও করি খুব সুন্দর। আর অবশ্যই খুব উজ্জ্বল রঙের শাড়ি পরি। বিশেষ করে ডার্ক ব্লু, রেড, পিঙ্ক খুব পছন্দ৷ নয়তো একেবারে পিওর সাদা রঙের শাড়ি চাই।

মুড অনুযায়ী পোশাক পরেন। তবে সব জায়গায় শাড়ি পরা যায় না, তখন পছন্দ ওয়ান পিস ড্রেস। কথায় কথায় নায়িকা জানলেন তাঁর অন্য আর একটি প্রেমের কথা। পারফিউম প্রেম! হ্যাঁ, আমি পারফিউমের অ্যাডিক্টড বলতে পারেন। ছেলেদের সুগন্ধী আমার খুব ভালো লাগে। এমনিতে এলিজাবেথ আর্ডেন আর বারবেরি ব্র্যান্ড খুব পছন্দ করি। তবে ছেলেদের যে কোনও সুগন্ধী পাগল করে দেয়। হাসতে হাসতে বললেন নায়িকা।

মেক-আপের বিষয়ে ম্যাক আর শেসেডোই তাঁর পছন্দের তালিকায় থাকে সবার আগে। জুতোর ক্ষেত্রে তিনি পছন্দ করেন যে কোনও ধরনের হিলস। আর গয়নার জন্য? কোনও শো থাকলে আলাদা বিষয়, তখন প্রয়োজন অনুসারে ভারি গয়নাও পরতে হয়। তবে আমার পছন্দ এথনিক হাল্কা গয়না। যার মধ্যে সরু চেনে একটা লকেট, হাতে ঘড়ি, কানে দুল হলেও হল, না হলেও চলে আর হাল্কা একটা রিং আঙুলে। শাড়ির সঙ্গে এই সাজে আমায় মানায় ভালো।