বিশ্বকাপের পর বিয়ের হিড়িক

images-1সময়টা দারুণ কাটছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের। বিশ্বকাপ জেতার স্মৃতিটা এখনো উজ্জ্বল। আগামী জুনের আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের কোনো ব্যস্ততা নেই। তার পরও অবসরের খুব একটা সুযোগ নেই বেশির ভাগ অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারের। কেননা আগামী ৮ এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। শেষ হতে না হতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের জন্য প্রস্তুতির ডাক। যারা আইপিএল খেলছেন না তাঁদের আছে কাউন্টি ক্রিকেট। সব মিলিয়ে বিশ্রাম বা আনন্দে সময় পার করার কোনো সুযোগ নেই। এরই মধ্যে যতটুকু সময় পাওয়া গেছে তারই সদ্ব্যবহার করেছেন ডেভিড ওয়ার্নার এবং শন মার্শ। আইপিএল শুরুর আগে পাওয়া সময়টুকুতেই শুরু করেছেন জীবনের দ্বিতীয় ইনিংস। দুজনই বান্ধবীদের সঙ্গে ঘর বাঁধার আনুষ্ঠানিকতা শেষ করছেন। একই সময়ে তাঁদের সঙ্গী হয়েছেন ভারতের সুরেশ রায়না। গত শুক্রবার এই ভারতীয় ব্যাটসম্যান জুটি বেঁধেছেন শৈশবের বান্ধবী প্রিয়ঙ্কা চৌধুরীকে।


শন মার্শ-রেবেকা

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের অধিনায়ক ওয়ার্নার তাঁর বান্ধবী ক্যান্ডিস ফ্যালজনের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধছেন আজ। তবে বিয়ে নিয়ে দুজনেই এত বেশি উৎফুল্ল যে ভক্তদের জানানোর জন্য তাঁদের আর দেরি সহ্য হয়নি। তাইতো এক দিন আগেই সবাইকে জানিয়ে দিয়েছেন এই জুটি। তবে বিয়ের কাজটা আগেই সেরেছেন শন মার্শ। বৃহস্পতিবার পার্থে বান্ধবী রেবেকার সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে করেছেন তিনি। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার কারণেই সতীর্থদের সঙ্গে ভারতে আসতে পারেননি ওয়ার্নার ও মার্শ। তাঁদের রেখেই অন্যরা ভারতে পৌঁছে গেছে। ওয়ার্নার ও মার্শ দেরিতে আইপিএল দলের সঙ্গে যোগ দেবেন।

ক্যান্ডিসের সঙ্গে ওয়ার্নারের পরিচয় ১৮ মাস আগে। লম্বা সময় সম্পর্কটা গোপন রাখলেও গত মাসে এক সাক্ষাৎকারে ক্যান্ডিসের সঙ্গে সম্পর্কের কথা জানিয়ে বলেছিলেন, ‘ক্যান্ডিস এমন একজন মানুষ যার সঙ্গে আমি বাকি জীবনটা কাটিয়ে দিতে পারব।’ ঠিক একই সুর ক্যান্ডিসের কণ্ঠে, ‘সত্যি কথা বলতে কি আমি কখনো বিয়ের কথা ভাবিনি, কিন্তু ওয়ার্নারের সঙ্গে পরিচয়ের পর থেকে সব কিছু পরিবর্তন হয়ে গেছে। ওয়ার্নার সব কিছু পরিবর্তন করে দিয়েছে।’

বিশ্বকাপ জেতায় এমনিতে ওয়ার্নারের ব্যাংক ব্যালান্স হঠাৎ করে ফুলে-ফেঁপে উঠেছে। এরই মধ্যে বিয়ের ছবি বিক্রির চুক্তি করে ৫ লাখ ডলার পাওয়া নিশ্চিত করেছেন ওয়ার্নার দম্পত্তি। দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here