কোণঠাসা সানি লিওন!

দীর্ঘ তিন বছর ধরে বলিউডে কাজ করছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডীয় মডেল, অভিনেত্রী ও সাবেক পর্নো তারকা সানি লিওন। কিন্তু বলিউডে এখনও একরকম কোণঠাসাই বলা যায় তাঁকে। ১০ এপ্রিল মুক্তি পাচ্ছে সানির নতুন ছবি ‘এক পেহলি লীলা’। ছবিটিতে সানির বিপরীতে অভিনয়ের জন্য একাধিক বড় মাপের তারকা অভিনেতাকে প্রস্তাব দেওয়া হলেও তাঁরা রাজি হননি। তাঁরা সানির পর্নো অভিনেত্রী ভাবমূর্তির কারণেই তাঁর সঙ্গে অভিনয়ে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

‘জিসম ২’ ছবির মাধ্যমে ২০১২ সালে বলিউডে পা রাখেন সানি লিওন। এরপর অভিনয় করেন ‘জ্যাকপট’ ও ‘রাগিনি এমএমএস ২’ ছবিতে। একাধিক ছবির আইটেম গানেও তাঁকে দেখা গেছে। গানগুলো জনপ্রিয়তাও পেয়েছে।

একটা সময়ে পর্নো তারকা ছিলেন সানি লিওন। বলিউডে কাজের সুযোগ পাওয়ার পর সেই পেশা থেকে সরে আসেন। বলিউডে নিয়মিত হওয়ার জন্য কানাডা ছেড়ে স্বামী ড্যানিয়েল ওয়েবারের সঙ্গে মুম্বাইয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। যথেষ্ট পেশাদারির সঙ্গে কাজ করার পরও পর্নো তারকা ভাবমূর্তির কারণে প্রায়ই পেশাগত বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে তাঁকে। তবে ‘এক পেহলি লীলা’ ছবি মুক্তি পাওয়ার পর এ অবস্থার উন্নতি হবে বলেই মনে করছেন ছবির পরিচালক ববি খান।

ববি খান বলেন, ‘বলিউডের একাধিক বড় মাপের তারকা ও চেনা মুখকে ‘‘এক পেহলি লীলা’’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয়। ছবির চিত্রনাট্য তাঁরা পছন্দও করেন। কিন্তু ছবিতে সানি আছেন জানার পর তাঁরা অভিনয় করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। কারণ একটা সময়ে পর্নো শিল্পের সঙ্গে জড়িত ছিলেন সানি। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।’ সম্প্রতি এক খবরে এমনটিই জানিয়েছে ইন্দো-এশিয়ান নিউজ।

ববি খান আরও বলেন, ‘সানি তাঁর অতীত জীবন থেকে দূরে সরে এলেও, এখনো তিনি আগের মতো আছেন বলেই মনে করেন সবাই। বিষয়টি সানিকে ভীষণ দুঃখ দেয়। অথচ তিনি খুবই পরিশ্রমী। শুরু থেকেই তিনি পেশাদারির প্রমাণ দিয়েছেন। তার পরও তাঁর সঙ্গে অভিনয়ে আপত্তি তোলার বিষয়টি আমাকে প্রচণ্ড ব্যথিত করেছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here