নয়াপল্টন বিএনপির কার্যালয় থেকে হঠাৎ পুলিশ প্রত্যাহার

টানা তিন মাস পর রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে পুলিশ প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। পুলিশ প্রত্যাহার করে নেয়া হলেও তালাবদ্ধ রয়েছে কার্যালয়। শুক্রবার দুপুর থেকে কার্যালয়ের আশপাশে কোনো পুলিশ সদস্যকে দেখা যায়নি। সেখানে ছিল না কোনো পুলিশ ভ্যানও। তবে কার্যালয়ের মূলফটক ছিল অন্যান্য দিনের মতেই তালাবদ্ধ।

কার্যালয়ের আশপাশের দোকানপাটের লোকজন জানান, দুপুরের পর থেকে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ও আশপাশে পোশাকধারী কিংবা সাদা পোশাকের কোনো পুলিশ সদস্যকে দেখা যায়নি। তারা জানান, এমনকি সাদা পোশাকের কোনো কর্মকর্তাকেও আনাগোনা করতে দেখা যায়নি। তবে ঘোষণা ছাড়া পুলিশি পাহারা সরিয়ে নেয়া হলেও কার্যালয়ের কোনো কর্মকর্তা কিংবা দলীয় নেতাকে সেখানে যেতে দেখা যায়নি।

এ ব্যাপারে পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, পুলিশ প্রত্যাহার করে নেয়ার বিষয়ে বলার এখতিয়ার আমার নেই। এ বিষয়ে ডিএমপির মিডিয়া সেলের দায়িত্বপ্রাপ্তরাই ভালো বলতে পারবেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পল্টন বিভাগের উপ-কমিশনার মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, বিএনপি কার্যালয়ের সামনে পুলিশ মোতায়েন করা হয়নি, প্রত্যাহারের বিষয়ও নেই। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা থাকলে সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, তালাবদ্ধ বিএনপি কার্যালয়ের ভেতরে পুরনো পত্রিকাসহ আবর্জনা ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে। সেখানে কোনো মানুষ না যাওয়ায় দেয়ালে মাকড়শা জাল তৈরি করেছে।

এর আগে গত ৩ জানুয়ারি রাতে বিএনপির দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে দলটির কার্যালয় থেকে আটক করে। পরে অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করে গোয়েন্দা পুলিশ। ওই সময়ই মূলফটকে তালা দিয়ে বিএনপি কার্যালয় সিলগালা করে দেয়া হয়। সেখানে সার্বক্ষণিক পুলিশি টহল জোরদারের পাশাপাশি বাড়ানো হয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি।