বিয়ের আসরে বর অজ্ঞান, রাগে কনের অতিথিকে বিয়ে

২৫ বছর বয়সি যুগল কিশোর, ভারতের মোরাদাবাদের বাসিন্দা এবং পাত্রী উত্তরপ্রদেশের রামপুরের ২৩ বছরের ইন্দিরা। মালাবদলের ঠিক আগের মুহূর্তে ঘটে সেই অঘটনটি, যখন সকলের সামনে অজ্ঞান হয়ে যান যুগল কিশোর। পাত্রী যখন জানতে পারেন, তাঁর পরিবারের লোক সমস্ত বিষয়টা তাঁর কাছে লুকিয়ে বিয়েটা দিচ্ছিল, তখনই তিনি সিদ্ধান্ত নেন, যুগলকে আর বিয়ে করবেন না। তিনি জেদ করে সেখানে উপস্থিত হরপাল সিংহ নামের এক ব্যক্তিকে বিয়ে করে বসেন। প্রথমে হঠাত্ আসা এই প্রস্তাবে অপ্রস্তুতে পড়ে গেলেও, হরপাল পরে এই প্রস্তাবে রাজি হয়ে যায়। তারপর জানা যায়, হরপাল পাত্রীরবড় বোনের দেবর।

একটি ইংরেজি দৈনিকে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, মালাবদল, সাত পাকে ঘোরা হয়ে যাওয়ার পর, সুস্থ হয়ে বিয়ের আসরে ফের আবির্ভূত হন প্রথম পাত্র যুগল কিশোর। কিন্তু ততক্ষণে ইন্দিরা ও হরপালের বিয়ে সম্পূর্ণ। যুগলের হাজার আকুতি সত্ত্বেও, নিজের সিদ্ধান্ত পরিবর্তনে রাজি হয়নি পাত্রী। যুগলের আত্মীয়রাও সবরকমের চেষ্টা করেন এই দাবি করে যে, যদি পাত্রী না নিয়ে তাঁরা ফেরেন, তাহলে প্রতিবেশী ও আত্মীস্বজনদের কাছে তাঁদের আর কোনও সম্মান থাকবে না। যখন আলোচনার মাধম্যে কিছু ফল হয় না, তখন প্লেট, কাপ, ডিশ ছোঁড়া শুরু করেন যুগল কিশোরের বাড়ির লোক। এরপর যুগল ও তাঁর বাড়ির লোক মিলাক থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। যদিও পরে দুই বাড়ির লোক আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করে এবং আপাতত অভিযোগ তুলে নেওয়া হয়েছে। মোরাদাবাদ ফিরে গেছে যুগল কিশোর ও তাঁর পরিবারের লোক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here