ফেসবুকের মালিকানা : জুকারবার্গকে নথি পেশের নির্দেশ আদালতের

সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুকের কর্ণধার জুকারবার্গকে আইনজীবীর কাছে নথি জমার নির্দেশ দিল নিউইয়র্কের একটি আদালত। শুক্রবার আদালত নির্দেশ দেয়, আগামী সোমবারের মধ্যে বিপক্ষের আইনজীবীর আবেদন মেনে প্রয়োজনীয় নথিপত্র জমা দিতে হবে।

সম্প্রতি পল সেগলিয়া নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ অভিযোগ করে, পল অনৈতিক উপায়ে ফেসবুকের এক বৃহৎ অংশের মালিকানা দাবি করেছেন। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত ব্যক্তি পলাতক। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আদালতে অভিযোগ করার পর বিচারক ফেসবুক ও তার মালিক জুকারবার্গকে এই নির্দেশ দেন। যদিও ফেসবুকের তরফে আদালতের কাছে আবেদন করা হয়েছিল, পল ধরা না পড়া পর্যন্ত নথিগুলো প্রকাশ করা যাবে না। আদালত ফেসবুকের আবেদন নাকচ করে আগামী সোমবারের মধ্যে পলের সঙ্গে ২০০৩ সালে ফেসবুকের ১৮ মাসের যে চুক্তি হয়েছিল তার যাবতীয় নথিপত্র ইলেক্ট্রনিক কমিউনিউকেশন-সহ জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। পল একাই নয়, পলের স্ত্রী, দুই সন্তানও পলাতক। গত সপ্তাহের এক শুনানিতে সেগলিয়ার বাবা দাবি করেন, সেগলিয়া পালিয়েছে কারণ সে মনে করছিল, ফেসবুকের মালিক আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করে তাকে ফাঁসানো হতে পারে।

২০১০ সালে মার্ক জুকারবার্গ হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্র থাকাকালীন তাকে এক হাজার ডলার ধার দেন পল। বিনিময়ে জুকারবার্গ পলকে ফেসবুকের ৫০ শতাংশ মালিকানা দেবেন বলে নাকি ই-মেইলে উত্তর দিয়েছিলেন। যদিও এখন ফেসবুক কর্ণধারের দাবি, তিনি মোটেও ওরকম কোনো চুক্তি করেননি পলের সঙ্গে। বরং পল নিজেই ২০০৩ সালে সফটওয়্যার সম্পর্কিত একটি ই-মেইল কথোপকথনকে অসৎ উপায়ে বদলে এই ৫০ শতাংশ মালিকানার মেইলটি আসল বলে দাবি করছেন। মার্কের দাবির স্বপক্ষে তার আইনজীবী হার্ভার্ডের কম্পিটারের ই-মেইল আর্কাইভের ফরেনসিক অ্যানালিসিসের রিপোর্ট পেশ করেছেন আদালতের কাছে। আদালত দুইপক্ষের বক্তব্য শোনার পর সেই সময় পল ও মার্কের মধ্যে যে ই-মেইলগুলো চালাচালি হয়েছিল সেগুলো দেখতে চেয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here