গরুকে মৌলিক অধিকার দেয়ার আহ্বান আদালতের

গরুকে শ্রদ্ধা করলেই হবে দেশের উন্নতি : ভারতীয় হাইকোর্ট

গরুকে মৌলিক অধিকার দেয়ার আহ্বান আদালতের

ভারতের এলাহাবাদ হাইকোর্টে বলছে, গরুকে শ্রদ্ধা করলেই দেশের উন্নতি হবে। সেজন্য গরুকে মৌলিক অধিকার দিয়ে জাতীয় পশু ঘোষণার আইন করতে হবে।

হিন্দু ধর্মমতে গরুকে একটি পবিত্র প্রতীক হিসাবে পূজা করা হয়। গোমুত্র, গোবর অনেক রোগের ঔষধ বলেও দাবি করেন হিন্দু ধর্মের কোনো কোনো অনুসারী। মাত্র কিছুদিন আগে গোমূত্র সেবনে মহামারী করোনা ভালো হবে বলেও দাবি করা হয়েছিল।

তবে এখন ভারতে গরু একটি রাজনৈতিক হাতিয়ারে পরিণত হয়েছে। বর্তমান শাসকদল বিজেপি নির্বাচনের আগে প্রায়ই গরুরক্ষার বিষয়টি ব্যবহার করে ভোটে জেতার চেষ্টা করে। তারা বেশ কয়েকটি রাজ্যে গরু নিধনের বিরুদ্ধে আইন পাস করেছে।

২০১৪ সালে মোদি ক্ষমতায় আসার পর এ বিষয় নিয়ে তার কর্মীরা সহিংসতা বৃদ্ধি করেছে। গরু সুরক্ষার নাম করে অনেককে কুপিয়েছে, হত্যা করেছে। গরু জবাই করার দায়ে অনেক মুসলিমকে গ্রেফতার করে হেনস্তা করা হচ্ছে।

গত ১ সেপ্টেম্বর ভারতের আহমেদাবাদ কোর্ট গরুকে জাতীয় পশু ও মৌলিক অধিকার দেওয়ার দাবি তুলেছে। বিচারপতি শেখর যাদব বলেছেন- গরু হলো ভারতের সংস্কৃতি এবং এ সংস্কৃতি সংরক্ষণের কাজ ধর্ম নির্বিশেষে দেশে বসবাসকারী প্রত্যেক নাগরিকের।

গরু চুরি ও জবাই করার অভিযোগে অভিযুক্ত একজন মুসলিমের জামিন নামঞ্জুর করার পর এই মন্তব্য করেন তিনি।

এলাহাবাদ হাইকোর্টের ওই বিচারপতি হিন্দু সম্প্রদায়ের গরু সুরক্ষা ভারতের মৌলিক অধিকারের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করাসহ এর জন্য জরুরি আইন প্রণয়নের আহ্বান জানান।

জাস্টিস শেখর জাদব টুইট বার্তায় বলেন, মৌলিক অধিকার শুধু গরুর মাংস খাওয়া নয়, বরং যারা গরুর পূজা করে এবং গরুর ওপর আর্থিকভাবে নির্ভরশীল তাদেরও অর্থপূর্ণ জীবন যাপনের অধিকার আছে।

এ রায়ে সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

সার্বাগাম সাম্পান গগন নামে এক ব্যক্তি টুইট করে বলেন, প্রিয় হিন্দু সম্প্রদায়! আহমেদাবাদের হাইকোর্ট আজকে যে রায় দিয়েছেন, তা হিন্দুদের জন্য অনেক বড় জয়। গরুকে অবশ্যই ভারতের জাতীয় পশু ঘোষণা করা উচিৎ। সেই সাথে এর সুরক্ষা মৌলিক অধিকারের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ। হিন্দুদের উপর আক্রোশেই জাবেদ নামে এ ব্যক্তি গরু জবাই করেছেন। তার জামিন নামঞ্জুর করেছে আহমেদাবাদ হাইকোর্ট।

আম্বুজ বাহরাজ বলেন, গরুকে অবশ্যই মৌলিক অধিকার দেওয়া উচিৎ এবং জাতীয় পশু ঘোষণা করা উচিৎ। আহমেদাবাদ হাইকোর্ট বলেছেন গরু সুরক্ষা শুধু ধর্মের জন্য নয়, এটি ভারতের একটি সংস্কৃতি।

তবে আকর প্যাটেল নামে একজন লিখেছেন- এখানে ‘শুধু’ শব্দটি বাদ পড়েছে। শুধু ভারতের গরুকে মৌলিক অধিকার দেয়া উচিত।

শুভ্র নামে একজন বলেছেন, এটা দেখাচ্ছে ‘বিজেপি4ইন্ডিয়া’ শাসন ভারতের সাংবিধানিক আচ্ছাদনের জন্য কতটা ক্ষতিকর।
এ ধরনের বিচারকদের নিষিদ্ধ করা উচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here