Home > খেলা > মুশফিক উইকেট কিপিং থেকে সরে যাচ্ছে!

মুশফিক উইকেট কিপিং থেকে সরে যাচ্ছে!

ভারত সিরিজে তাহলে উইকেটের পেছনে মুশফিকুর রহিমকে দেখা যাচ্ছে না? গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ঘটা করে জাতীয় দলের নতুন স্পন্সর রবির লোগোখচিত জার্সি উন্মোচনের পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান অন্তত বলেছেন তেমন সম্ভাবনার কথাই। সেই সঙ্গে এও জানিয়ে রেখেছেন যে আপাতত মুশফিককে উইকেটকিপিং থেকে নিষ্কৃতি দেওয়ার কারণ শুধুই ইনজুরি।

পাকিস্তান সিরিজের খুলনা টেস্টের সময় উইকেটের পেছনে একটি ক্যাচ নিতে গিয়েই ডান হাতের অনামিকায় চোট পান বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক। ব্যাট হাতেও যে সিরিজটি ভালো যায়নি তাঁর। তার ওপর ঢাকায় শেষ টেস্টে টস জিতে প্রতিপক্ষকে ব্যাটিংয়ে পাঠানো নিয়েও সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন তিনি। সব মিলিয়ে মুশফিকের নেতৃত্বের ভবিষ্যৎও যেন কিছুটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল। সেই অনিশ্চয়তা কাল আরো একবার মুছে দিলেন বিসিবি সভাপতি, ‘মুশফিককে অধিনায়কত্ব থেকে সরানো নিয়ে একটা কথা উঠেছিল। কিন্তু এমন কোনো পরিবর্তনের চিন্তা বোর্ডের নেই।’

তবে হ্যাঁ, গত কয়েক বছরে বাংলাদেশ দলের ব্যাটিংয়ের প্রাণভোমরা হয়ে ওঠা মুশফিককে চাপমুক্ত হওয়ার জন্য যে পরামর্শ তিনি দিয়ে আসছেন, তাতে নাজমুল এখনো অটল। হয় নেতৃত্ব নয়তো উইকেটকিপিং, এর যেকোনো একটি বাদ দেওয়ার পরামর্শ দিয়ে এলেও বরাবরের মতো এবারও বিসিবি সভাপতি বল ছেড়ে রাখলেন মুশফিকের কোর্টে। আবার টেস্ট নেতৃত্বে আপাতত যেহেতু মুশফিকের যোগ্য বিকল্পও নেই, তাই ছাড়লে উইকেটকিপিংটাই ছেড়ে দেওয়ার পরামর্শ নাজমুলের, ‘যদি এমন হয় যে খুব বেশি চাপ হয়ে যাচ্ছে ওর, সে ক্ষেত্রে কোনো একটি ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তটি মুশফিককেই নিতে হবে। কোনটা রাখবে আর কোনটা ছাড়বে, এটা ও-ই ঠিক করুক। আমার ধারণা কোনো একটি ছেড়ে দেওয়ার প্রশ্নে প্রথমে আসবে উইকেটকিপিংটাই। আমি যত দূর জানি, ও উইকেটকিপিং করতে ইচ্ছুক।’

নিজে থেকে যে কোনোটিই ছাড়ার ইচ্ছে নেই, সেটি কয়েক দিন আগে মুশফিক নিজেও স্পষ্ট করেছেন, ‘এর আগেও তো আমি তিনটিই (অধিনায়কত্ব, ব্যাটিং এবং উইকেটকিপিং) করেছি। এবং ভালোও করেছি। তখন তো কথা হয়নি।’ তবে ভারত সিরিজের আগে তাঁর ডান হাতের চোটগ্রস্ত অনামিকা নিয়ে উদ্বেগ আছে। যে জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) শেষ রাউন্ডের ম্যাচ খেলা থেকেও নিষ্কৃতি পেয়েছিলেন। বাংলাদেশ দলের অনুশীলন শুরু হয়ে গেলেও মুশফিক শুধুই ব্যাটিং করছেন। এই অবস্থায় নাজমুল বলে দিলেন, ‘ওর চোট যেহেতু পুরোপুরি সারেনি, তাই আসছে সিরিজে উইকেটকিপিং করা নিয়ে সংশয় আছে। হয়তো সে কিপিং নাও করতে পারে।’ এ বিষয়ে মুশফিকের বক্তব্য জানা না গেলেও নির্বাচক হাবিবুল বাশার বলেছেন, ‘ওর চোট সমস্যা তো আছেই। তবে ভারতের বিপক্ষে টেস্টের আগে এখনো বেশ কয়েকটা দিন বাকি আছে। তাই উইকেটকিপিং করবে কি করবে না, সে সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করাই ভালো।’

এদিকে মহিলা দলকে পাকিস্তান সফরে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রেও আরো অপেক্ষা করতে চায় বিসিবি। এমনিতে মাসখানেক আগে পরিচালনা পর্ষদের সভায় পাকিস্তানে দল পাঠানোর নীতিগত সিদ্ধান্তই হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে সেখানে মেয়েদের পাঠানো নিরাপদ কি না, সে প্রশ্নও নতুন করে উঠে গেছে। কারণ সফরকারী জিম্বাবুয়ের সঙ্গে দ্বিতীয় ওয়ানডের দিনই লাহোরে স্টেডিয়ামের কাছাকাছি বোমা হামলায় ব্যাপক হতাহতের ঘটনা নিশ্চিত করে দিয়েছে যে সেখানে এখনো প্রাণসংশয় আছে। তাই পাকিস্তান যাওয়ার প্রশ্নে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভারও নারী ক্রিকেটারদের ওপরই ছেড়ে দিতে চান নাজমুল, ‘পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) থেকে জানতে চাওয়া হয়েছিল, মহিলা দল কখন পাঠাব। আমি বলেছি, এটা পুরোপুরি আমাদের মহিলা দলের ওপর নির্ভর করছে। মেয়েরা একসময় বলেছিল, ওরা যেকোনো জায়গায় খেলতে যেতে চায়। কিন্তু এখন ওরা সেখানে (পাকিস্তানে) যেতে চায় কি না, সেটা প্রথমে জানতে হবে। যদি ওরা যেতেও চায়, তখন আমরা দেখব বর্তমান পরিস্থিতিতে ওদের পাঠানো নিরাপদ কি না। যদি আমরা মনে করি নিরাপদ, তাহলে ওরা যাবে।’