ডু প্লেসিস-রুশোর প্রতিরোধ

প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠার লক্ষ্যে সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও নিউজিল্যান্ড।

মঙ্গলবার অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে শেষ চারের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করছে দক্ষিণ আফ্রিকা। শুরুটা অবশ্য খুব একটা ভালো হয়নি প্রোটিয়াদের। দলীয় ৩১ রানের মধ্যে আউট হয়ে ফিরে গেছেন হাশিম আমলা (১০) ও কুইন্টন ডি কক (১৪)। দুটি উইকেটই নিয়েছেন কিউই পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। তবে তৃতীয় উইকেটে প্রতিরোধ গড়েছেন ফাফ ডু প্লেসিস ও রিলে রুশো।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২২ ওভার শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ২ উইকেটে রান ৮৮। ফাফ ডু প্লেসিস ৩৫ ও রিলে রুশো ২২ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

ইনিংসের চতুর্থ ওভারে দলীয় ২১ রানে ওপেনার হাশিম আমলাকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান ট্রেন্ট বোল্ট। ১৪ বল মোকাবিলা করে ২ চারে ১০ রান করেন আমলা। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে প্রোটিয়া ‍শিবিরে আবার অাঘাত হানেন বোল্ট। এবার আরেক ওপেনার কুইন্টন ডি কককে টিম সাউদির ক্যাচে পরিণত করেন এই কিউই পেসার। ডি ককের সংগ্রহ ১৪ রান।

ডি ককের উইকেট নিয়ে রেকর্ড বুকে নাম লেখান বোল্ট। বিশ্বকাপের এক আসরে নিউজিল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ শিকারের রেকর্ড করেন তিনি। ডি ককের উইকেট নিয়ে অাসরে বোল্টের উইকেটসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১টি। এর আগে ১৯৯৯ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের হয়ে ২০ উইকেট নিয়েছিলেন জিওফ অ্যালট।

 

দক্ষিণ আফ্রিকা দল : এবি ডি ভিলিয়ার্স (অধিনায়ক), হাশিম আমলা, কুইন্টন ডি কক, ফাফ ডু প্লেসিস, রিলে রুশো, ডেভিড মিলার, জেপি ডুমিনি, ডেল স্টেইন, ভারনন ফিল্যান্ডার, মরনে মরকেল ও ইমরান তাহির।

নিউজিল্যান্ড দল : ব্রেন্ডন ম্যাককালাম (অধিনায়ক), মার্টিন গাপটিল, কেন উইলিয়ামসন, রস টেলর, গ্র্যান্ট ইলিয়ট, কোরি অ্যান্ডারসন, লুক রনকি, ড্যানিয়েল ভেট্রোরি, ম্যাট হেনরি, টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here