সন্তানকে অর্থের মূল্য বোঝান

fileসন্তানকে ছোট থেকেই অনেকগুলো বিষয় সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে হবে। তাহলে সে পরে গিয়ে তেমন কোনো ঝামেলা পোহাবেন। ছোট থেকেই সন্তান নিজেই সবকিছু শিখবেন এমনটা আশা করাও ভুল। তবে আপনি তাকে কিভাবে শেখালেন সেটার উপরেই নির্ভর করে ভবিষ্যতে সে টাকার ব্যাপারে কতটা স্থির হবে। জেনে নিন শিশুকে অর্থনৈতিকভাবে স্থির করে তোলার কিছু টিপস।
সন্তানকে পুর্নব্যবহার শেখান: সন্তানকে তার প্রয়োজনীয় জিনিস দিতেই হবে। তবে সেটা দিতে গিয়ে তাকে সবসময় নিডি করে তুলবেন না। বরং তাকে একই জিনিস বারবার ব্যবহার করা শেখান। দেখবেন সে সেটাই গ্রহণ করবে। তাকে স্থানীয় কোনো লাইব্রেরিতে নিয়ে যান যেখানে ১৫ দিন পর বই ফেরত দিতে হবে। দেখবেন এতে তার মধ্যে গুছিয়ে ব্যবহার করার অভ্যাস গড়ে উঠবে আবার দায়িত্বও বাড়বে।
তাকে ভাগাভাগি করে নিতে শেখান: বাচ্চারা অনুসরণ করতে পছন্দ করে। তাই আপনি আপনার সঙ্গীর সাথে কিছু ভাগাভাগি করলে দেখবেন সেও অন্যদের সাথে অনেককিছু ভাগ করে নিতে শিখছে। যদি আপনার বাচ্চারা কাছাকাছি একই বয়সের হয় তাহলে তাদের একটা করে খেলনা কিনে দিন। এতে করে তারা ভাগাভাগি করে খেলতে পারবে তেমন টাকার ব্যাপারেও সচেতন হবে।
তাকে হাত খরচের টাকা দিন: ছোট থেকেই ওকে হাত খরচের একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা দিন। আর এর মধ্যেই ওকে তার শখের জিনিস কিনতে বলুন। দেখবেন সে সঞ্চয় করা শিখছে এবং অপচয় করছে না। তাকে এই টাকা থেকেই অল্প খানিকটা সংসারের কাজে ব্যয় করতে বলতে পারেন। তাহলে ওর মধ্যে দায়িত্ববোধ গড়ে উঠবে।
প্রয়োজন এবং শখ: দুটির মধ্যে তাকে পার্থক্য করতে শেখান। কোনটা তার দরকারি সেটা তাকে বুঝতে শেখান। তাই বলে খুব কড়াকড়ি করবেন না। তার চাহিদা বুঝতে চেষ্টা করুন। তারপর সেটা তাকে বোঝান।
এভাবেই একটুখানি সচেষ্ট হলে সহজেই তাকে সচেতন করে তোলা সম্ভব হবে। দেখবেন সেও ধীরে ধীরে সবটাই বুঝতে শিখবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here