যেভাবে হবেন নজরকাড়া সুন্দরী

দিনেরfile-2 কাজের শেষে ঘুমোবার আগে নিজের পেছনে ব্যয় করা মাত্র আধা ঘণ্টা আপনাকে রাখবে স্নিগ্ধ ও সুন্দর। তাই কর্মব্যস্ত দিনের শেষে মাত্র ৩০টি মিনিট সময় রাখুন একেবারেই নিজের জন্য। ছোট ছোট কিছু দিকে খেয়াল, সামান্য যত্নেই হয়ে উঠুন চির সবুজ ও অনন্যা।

প্রাথমিক নিয়ম

বাইরে গেলে তো বটেই, না গেলেও ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। রান্নাঘরের তেলকালিও ত্বকের জন্য ক্ষতিকর।

সাবানের পরিবর্তে ব্যবহার করুন ফেসওয়াশ বা প্রাকৃতিক কোনো উপাদান।

সুন্দর দেখাতে সাহায্য করলেও মেকআপ ত্বকের সবচেয়ে বড় শত্রু। তাই যতই ক্লান্ত থাকুন না কেন মেকআপ ভালো করে তুলে তারপর ঘুমাতে যান।

ত্বকের ধরন অনুযায়ী ক্লিনজার বেছে নিন।

ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

মুখের সঙ্গে গলা, হাত, কনুইতেও ময়েশ্চারাইজার লাগাবেন।

চুল ভালো করে আঁচড়ে নিয়ে একটু বেঁধে ঘুমুতে যান।

চুলের যত্ন

রাতে গোসল করার অভ্যাস থাকলে ঘুমানোর আগে চুল ভালো করে শুকিয়ে নিন।

খুশকির সমস্যা থাকলে রাতে অ্যান্টি-ড্যানড্রাফ তেল চুলের গোড়ায় ভালোভাবে ম্যাসাজ করে শুতে যান। সকালে শ্যাম্পু করে নিন।

শোবার সময়ে লম্বা চুল খুব টেনে টাইট করে বাঁধবেন না। স্ক্যাল্পে রক্ত চলাচল বাধাগ্রস্ত হবে। চুল ভালো করে আঁচড়ে হালকা বেনি বা ঝুঁটি বেঁধে ঘুমোতে যান।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন

শোবার আগে মাইল্ড ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধোবেন।

পুদিনাপাতার রস ও গোলাপজল মিশিয়ে মুখে লাগান। ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

শুষ্ক ত্বকের যত্ন

সাবান ব্যবহার করবেন না। ক্লিনজিং মিল্ক দিয়ে মুখ-গলা-ঘাড় পরিষ্কার করুন।

দুধের সর ও গোলাপজল মিশিয়ে মুখে ম্যাসাজ করুন। ৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানিতে তুলো ভিজিয়ে মুছে ফেলুন।

স্বাভাবিক ত্বকের যত্ন

বেবি সোপ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

ঠাণ্ডা গোলাপজলে তুলো ভিজিয়ে সারা মুখে লাগান।

হালকা ওভার নাইট ক্রিম ব্যবহার করুন।

চোখের যত্ন

ঠাণ্ডা দুধে তুলো ভিজিয়ে ক্লান্ত চোখের ওপর ১৫ মিনিট রাখুন। ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। এতে চোখের নিচের কালি কমবে।

চোখের পাতায় সামান্য পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে শুতে যান।

কোনো ঘন ক্রিম চোখের পাতায় ব্যবহার করবেন না, হোয়াইট হেডস উঠতে পারে।

চোখের কোনের বলিরেখা দূর করতে আন্ডার আই ক্রিম ব্যবহার করুন।

যদি বাড়িতে ভ্রূ প্লাক করার অভ্যাস থাকে তাহলে শুতে যাওয়ার আগে করাই ভালো। লালচে ভাব সারা রাতে চলে যাবে। প্লাকিংয়ের পর বরফ ব্যবহার ও ক্রিম মাসাজ করতে ভুলবেন।

ঠোঁটের যত্ন

শুকনো ঠোঁটে পুরু করে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে নরম টুথব্রাশ দিয়ে খুব আস্তে আস্তে ঘষুন। মরা চামড়া উঠে আসবে।

নিয়মিত লিপ বাম মেখে শুতে যান।

ঠোঁট নরম রাখতে দুধের সর লাগান। ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

হাতের যত্ন

সপ্তাহে একদিন গোলাপজল আর গ্লিসারিন মিশিয়ে ঘুমানোর আগে দুই হাতে ম্যাসাজ করুন।

ভিটামিন ই অয়েল বা আমন্ড অয়েল নখ এবং তার চারপাশে লাগান। নখ মজবুত হবে।
যাদের হাতের ত্বক শক্ত ও রুক্ষ হয়ে যাচ্ছে তারা হাতে ভালো করে পেট্রোলিয়াম জেলি মেখে শুতে যান।

পায়ের যত্ন

প্রতিদিন রাতে পা খুব ভালো করে পরিষ্কার করে তারপর শুতে যান।

নিয়মিত পেডিকিওর করুন।

যাদের পা ফাটার সমস্যা আছে তারা সপ্তাহে দুই দিন শুতে যাবার আগে অল্প গরম পানিতে শ্যাম্পু মিশিয়ে ১০ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন। পামিস স্টোন বা ফুট ব্রাশ দিয়ে পা ঘষে ঘষে পরিষ্কার করে, শুকনো করে মুছে, ময়েশ্চারাইজার বা ফুট ক্রিম মেখে শুতে যান।

পা ফাটা থেকে বাঁচতে সুতির মোজা পরে ঘুমান। খুব গরম লাগলে মোজার আঙুলের জায়গাটা কেটে বাদ দিন। আরাম লাগবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here