ভারতে বঞ্চনার শিকার শ্যামলা ত্বকের নারীরা

image_201265.7300a5dc-4553-4d42-81dd-5a97728a647dwallpaper1 (1)ভারতে অপেক্ষাকৃত শ্যামলা বর্ণের নারীরা বাস্তব জীবনে নানা প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হন। এ বিষয়টি বাস্তবে অনেকে স্বীকার করতে না চাইলেও এজন্য নারীদের বহু ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে হয়। তবে সম্প্রতি এক জরিপে দেখা গেছে, শুধু নারীই নয়, পুরুষরাও শ্যামলা ত্বকের কারণে সমস্যার মুখোমুখি হন। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস।
সম্প্রতি ভারতে শ্যামলা বর্ণের নারীদের লাঞ্চনা ও ফর্সা নারীদের প্রতি মোহের বিষয়টি স্বীকার করলেন বিহারের এক রাজনীতিবিদ শারাদ যাদব। তিনি বিষয়টি পার্লামেন্টেও উপস্থাপন করেন।
যাদব বলেন, ‘এখানে মানুষেরা সাদা চামড়ায় আগ্রহী….. ঘটকদের বলা হয় ফর্সা কনে দেখার জন্য….’
এ সমস্যা কতো জটিল তা বোঝার জন্য ২০১২ সালের এক জরিপ যথেষ্ট। সে সময় পরিচালিত জরিপটিতে দেখা যায়, শুধু ফর্সা নারীই নয় ফর্সা পুরুষও সবার কাঙ্ক্ষিত। এতে উঠে আসে, ৭১ ভাগ নারী তাদের জীবনসঙ্গী হিসেবে ফর্সা পুরুষকে অগ্রাধীকার দেয়।
ভারতের এক ঘটকালি সাইটের কর্মকর্তা বলেন, ৬৫ থেকে ৭০ ভাগ পুরুষ তাদের ত্বকের রং ফর্সা হিসেবে উল্লেখ করেন।
৩৪ বছর বয়সী ব্যাংকার লেখা সারাং জানান, গত বছর তার বিয়ে ঠিক হয়েছিল। কিন্তু তা শুধু গায়ের রং শ্যামলা হওয়ার কারণে ভেস্তে যায়।
তিনি জানান, প্রাথমিকভাবে তিনি বহু জায়গা থেকে বিয়ের প্রস্তাব ভেঙে যাওয়ার কারণ বুঝতে পারছিলেন না। কিন্তু পরবর্তীতে অনুসন্ধান করে জানতে পারেন, একমাত্র গায়ের রঙের কারণেই তার বিয়ে ভেঙে যাচ্ছে। শুধু পাত্র বা পাত্রীর কারণেই যে বিয়ের প্রস্তাব ভেঙে যায় এমনটাও নয়। বহু পাত্রের পরিবারের সদস্যরাও ফর্সা মেয়ে ছাড়া বিয়েতে রাজি হন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here