লাল চাল কী? লাল চালের উপকারিতা কী? কোথায় পাওয়া যায়?

লাল চাল কী? চাল চালের উপকারিতা

লাল চাল ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। সাদা চালের পরিবর্তে অনেকে এখন লাল বা বাদামি চাল বেছে নিচ্ছেন স্বাস্থ্যগত উপকারিতা বিবেচনা করে। অনেকে আবার বাদামি ও লাল চালকে একই মনে করছেন। কিন্তু না। তাদের মধ্যে আছে পার্থক্য আছে।
যা-ই হোক এ প্রবন্ধে আমরা আলোচনা করবো লাল চাল সম্পর্কে। লাল চাল কী? লাল চালে কোন ভিটামিন থাকে? লাল চালের উপকারিতা, লাল চাল কোথায় পাওয়া যায়, লাল চালের দাম ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ে।

লাল চাল কী?

প্রথমেই আমরা জানবো লাল চাল কী? এটা মূলত চালের একটি প্রকার, যেটা অ্যান্থোসায়ানিন নামে এক ধরনের উপাদানে পরিপূর্ণ। অ্যান্ধোসায়ানিনের কারণেই চালটিকে লাল দেখায়।
এ চাল সাধারণত ছাটাই না করে অথবা কম ছাটাই করে খাওয়া হয়। চালটিকে সাধারণ বাদামির চেয়ে কিছুটা গাঢ় লাল দেখায়।
লাল চালের স্বাদ কিছুটা বাদামের মতো। ছাটাই করা চালের চেয়ে এর পুষ্টিগুণ অনেক বেশি।
তবে এ চাল রান্না করতে সাদা চালের চেয়ে বেশি সময় লাগে।

লাল চালে কোন ভিটামিন থাকে

লাল চালে প্রচুর পরিমাণে জিংক, আয়রন, ক্যালশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন বি১, বি২ ও বি৬, ম্যাংগানিজ, সেলেনিয়াম, আমিষ ও পটাশিয়াম থাকে। শরীরের জন্য এগুলো খুব দরকার।

লাল চালের উপকারিতা

লাল চালের বহুবিধ উপকারিতা রয়েছে। স্বাস্থ্য ও জীবনধারাবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যার সমাধান হয় লাল চাল খেলে। লাল চালে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ম্যাগনেশিয়াম; যেগুলো একাধিক রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। ডায়াবেটিস ও শ্বাসকষ্টের সমস্যা সমাধানেও উপকারী এটি।
আসুন, জেনেই নিই লাল চালের স্বাস্থ্য উপকারিতা—

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

আয়রনের অভাবে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। এতে মানুষ দ্রুত ক্লান্ত হয়ে পড়ে, কাজে মন বসে না। লাল চালে আছে আয়রন, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

হাড় মজবুত করে

লাল চালে থাকে ম্যাগনেশিয়াম, যা হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। তাই এ চাল খেলে হাড় ক্ষয়ে যাবে না। জয়েন্টের সমস্যাও দূর করবে।

লাল চালের উপকারিতা
লাল চালে আছে আয়রন, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে

ইনসুলিন লেভেলকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে এই চাল। এর লো গ্লাইসেমিক সূচক সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে, তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এই চাল খুবই উপকারী।

চাল চাল হজমের জন্য ভালো

লাল চাল ফাইবারের দুর্দান্ত উৎস। এটি দেহ থেকে টক্সিন বের করে অন্ত্র ঠিক রাখতে সাহায্য করে।

শ্বাসকষ্ট প্রতিরোধে লাল চাল

এ চাল পালমোনারি ফাংশনকে নিয়ন্ত্রণ করে। এ চালে রয়েছে ম্যাগনেশিয়াম, যা দেহের অক্সিজেনের সার্কুলেশন ঠিক রাখে। শ্বাসকষ্ট প্রতিরোধে সাহায্য করে লাল চাল।

ওজন কমাতে সাহায্য করে

লাল চালে রয়েছে প্রচুর ফাইবার, যা পাচনতন্ত্রের জন্য উপকারী। এ চাল কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাও দূর করে। ফলে মেদ বাড়ে না।

বয়সের ছাপ রোধ করে

লাল চালে থাকা আয়রন ও ভিটামিন লোহিত রক্তকণিকা তৈরিতে সাহায্য করে। লাল চালে থাকা উপাদানগুলো ত্বকের জন্য খুব উপকারী। ত্বকে বয়সের ছাপ রোধে সাহায্য করে।

ক্যান্সারের আশঙ্কা কমায়

বিশ্বে ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। এই মরণঘাতী রোগ থেকে দূরে থাকতে চাইলে নিয়মিত লাল চালের ভাত খান। এই ভাতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ক্যান্সার থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে। বিশেষ করে কোলন ও ব্রেস্ট ক্যান্সারের আশঙ্কা কমায় এই চালের ভাত।

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে, লাল চালের ভাত খেলে তা লিউকেমিয়ার মতো ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে।

লাল চালের নাম

কৃষি বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, লাল চালের কয়েকটি জাত- ষাটিয়া, শালকেলে, কেলে আউশ, কেলাস, ভুতমুড়ি, অগ্নিবাণ, লাল দুধেশ্বর, খাড়া প্রভৃতি।

লাল চাল কোথায় পাওয়া যায়

আমরা সাধারণত ৩-৪ ধরনের চালের কথাই জানি বা দেখে থাকি, পৃথিবীতে মোটামুটি ৪০,০০০ ধরনের ধান বা চাল পাওয়া যায়। লাল চাল প্রধানত ভারত, ইউরোপ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াতে চাষ করা হয়।

বাংলাদেশে সাধারণত লাল চাল বলতে কমছাঁটা বা ঢেকিছাঁটা চালকে বোঝান। মানে ধানের খোসা ছাড়ানোর পর চালের ওপরের লাল আস্তরণটি রেখে দেয়া হলে সেটাই লাল চাল হিসেবে বিক্রি করা হয়।

এছাড়া দুয়েকটি জাতের লাল চালও পাওয়া যেতে পারে। অনেকে দেশি লাল আমন চালকে লাল চাল হিসেবে বিক্রি করেন। আবার বাউলা দিঘা, লাল বিরুই, আফসারা -এগুলোকে চাল চাল হিসেবে উল্লেখ করেন।
কিন্তু এ বিষয়ে এখনো তেমন কোনো পূর্ণাঙ্গ তথ্য আমরা পাইনি। এ বিষয়ে তেমন কোনো লেখাও খুঁজে পাইনি। আপনারা কেউ পেলে মন্তব্যে অবশ্যই জানাবেন। আমরা লেখাটি আপডেট করে দেবো।

লাল চালের দাম কত

আগেই বলেছি বাংলাদেশে প্রকৃত লাল চাল খুব একটা পাওয়া যায় না। তারপরও যেসব লাল বর্ণের চাল পাওয়া যায় সেগুলোও সাদা চালের চেয়ে অনেক বশি উপকারী।
দেশে প্রচলিত লাল বা ব্রাউন চালের দাম ক্রেজি প্রতি ৮০-১০০ টাকা হতে পারে।

সমাপনী কথা
খাদ্যমূল্য বিচারে লাল চাল ও বাদামি চালের তফাৎ কম। লাল চালে প্রচুর এন্টি অক্সিডেন্ট থাকে যা ক্ষতিকর ফ্রি রেডিকেল থেকে শরীরকে রক্ষা করে। বাদামি চাল পৃথিবীর সব দেশে চাষ করা হয়।

তথ্যসূত্র

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here