বগুড়ায় যুবলীগ নেতার দুই পা কেটে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা

বগুড়ার শাজানপুর উপজেলায় সাজু মিয়া (৪০) নামের এক যুবলীগ নেতাকে অপহরণের পর দুই পা কেটে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার বৃ-কুষ্টিয়া করতোয়া নদীর ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাতেই তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে। সাজু মিয়া শাজাহানপুর  উপজেলা যুবলীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য।

পুলিশ সূত্র জানায়, রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাঝিড়া বন্দর থেকে কাবাব খাওয়ানোর কথা বলে এক যুবক সাজু মিয়াকে ডেকে নিয়ে যায়। রাত সাড়ে ৯টার দিকে বৃ-কুষ্টিয়া এলাকায় করোতায়া নদীর ব্রীজের কাছে তার দুই পা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

শাজাহানপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাছির উদ্দির বাবলু জানান, একদল সন্ত্রাসী যুবলীগ নেতা সাজুকে মাঝিড়া বন্দর থেকে অপহরন করে নিয়ে যায়। পরে তার দুই পায়ে উপর্যুপুরি কুপিয়েছে। সাজুর দুই পায়ের উরুর নিচ থেকে পুরো পা চামড়ার সাথে ঝুলে আছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, পা দুটি রক্ষা করা কোনভাবেই সম্ভব নয়।

শাজাহানপুর থানার ওসি আব্দুল মান্নান চিকিৎসকের বরাত দিয়ে জানান, আহত সাজুর দুই পায়ের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে রাতেই ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে স্থানান্তর করেছেন চিকিসৎকরা।

এদিকে স্থানীয় একটি সূত্রে জানাগেছে, মাঝিড়া বন্দরে সরকারি জায়গায় দোকান ঘর নির্মানকে কেন্দ্র করে সাজুর বাবা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বারকে কিছুদিন আগে মারপিট করেছিল এক যুবলীগ ক্যাডার। সাজু তার বাবাকে মারপিট করার প্রতিশোধ নেয়ার ঘোষনাও দিয়েছিল। স্থানীয়দের ধারনা ওই ঘটনার জের ধরেই সাজুকে কৌশলে ডেকে নিয়ে গিয়ে দুই পা কেটে নেয়া হতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here