সব আলো কেড়ে নিলেন মেসি

বিদায়ের দ্বারপ্রান্তে উপনীত ২০১৭ সাল সাফল্যের শিখরে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। আক্রমণ ভাগে পর্তুগালের অধিনায়কের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স এক্স ফ্যাক্টর ভূমিকায় রিয়াল মাদ্রিদের বহু প্রতীক্ষিত ডাবল জয়ের উৎসবে। তবে দ্রুততম সময়ে পাল্টে গেল ইউরোপীয় ক্লাব ফুটবলের ‘উৎসবমুখর’ মঞ্চের দৃশ্যপট। ফিফার দ্য বেস্ট ও ব্যালন ডি’অর জয়ী রোনালদোকে সরিয়ে নায়কের চরিত্রে আর্জেন্টাইন সেনসেশন লিওনেল মেসি। তার বল পায়ের জাদুতে বার্সেলোনাও আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি রিয়াল মাদ্রিদকে হটিয়ে।

শনিবার সান্তিয়াগো বার্নাবুতে অনুষ্ঠিত লা লিগার চলতি মওসুমের প্রথম এল ক্লাসিকোয় উদ্ভাসিত ২০১৮ সালের ফুটবল অঙ্গনের সম্ভাব্য প্রতিচ্ছবি। মাঠের সামর্থ্যরে প্রমাণ দিয়ে আসছে বছরের ফুটবলীয় সাফল্যের মধ্যমণি হিসেবে দৃশ্যপট দখলে নেয়ার রেসে একচ্ছত্র আধিপত্য মেসির। তার ব্যক্তিগত নৈপুণ্যের ধারাবাহিকতায় লা লিগার শ্রেষ্ঠত্ব পুনরুদ্ধার মিশনে সাফল্য ইতোমধ্যেই একপ্রকার নিশ্চিত বার্সেলোনার।

 

স্থানীয় দর্শকে টইটম্বুর ক্লাসিকোয় বার্নাবুতে বার্সার ঐতিহাসিক ক্লাসিকো জয়োৎসবেও এক্স ফ্যাক্টর লিট ম্যাজিশিয়ান মেসির পারফরম্যান্স। বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত ৯০ মিনিটের ফুটবলীয় লড়াইয়ে ভাগ্য চূড়ান্ত আর্জেন্টাইন তারকার ব্যক্তিগত নৈপুণ্য। ফলে ইতিহাসও গড়েছে বার্সেলোনা। বার্নাবুতে লা লিগার টানা তিন ক্লাসিকো জেতার নতুন অধ্যায় যোগ হয়েছে ক্লাবটির গৌরবের ইতিহাসে। সফরকারী বার্সেলোনা ও মেসির উৎসবের মঞ্চে ব্যর্থতার যন্ত্রণা হতাশা বেড়েছে রোনালদো ও রিয়াল মাদ্রিদের। লা লিগার ১৯ খেলা শেষে চ্যাম্পিয়নদের চেয়ে ১৪ পয়েন্ট বেশি নিয়ে বড়দিন উদযাপনে গেছে মেসি অ্যান্ড কোং। তাদের সাম্প্রতিক সাফল্যে হতবাক অনেকে। স্প্যানিশ সুপার কাপের ক্লাসিকোয় বিধ্বস্ত বার্সার দুর্দান্ত কামব্যাকে বাদ সাধতে পারেনি নেইমারের আলোচিত দলবদলও!

মূলত মেসির অন্য গ্রহের পারফরম্যান্সের রেকর্ডে উজ্জীবিত বার্সেলোনা রূপান্তরিত হয়েছে অপরাজেয় দলে। দলটির দুর্দান্ত নৈপুণ্যের ধারাবাহিকতায় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে আর্জেন্টাইন সুপারস্টারের বল পায়ের নিখুঁত কারুকার্যে সৃষ্ট একটির পর একটি রেকর্ড গড়ার উৎসবে। নতুন মওসুমের প্রথমার্ধেই ক্লাব ক্যারিয়ারকে অনন্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন মেসি। আসছে ২০১৮ সালের ফুটবলীয় উৎসবের নায়ক হিসেবে উদ্ভাসিত হওয়ার রেসে তাকে এগিয়ে দিয়েছে সাম্প্রতিক সময়ের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স।

 

একনজরে মেসির রেকর্ডের উপাখ্যান…


লা লিগার ইতিহাসে এক খেলায় সর্বোচ্চ ৯টি গোলের সুযোগ সৃষ্টির ইতিহাস গড়েছেন লিওনেল মেসি বার্নাবু সফরের ক্লাসিকোয়। সর্বশেষ মাদ্রিদ সফরে আর্জেন্টাইন জাদুকরের ওই কৃতিত্ব বিস্মিত করেছে ফুটবলের বিশ্লেষকদেরও। অনেকেই তাকে ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ ফুটবলারের খ্যাতি দিতে কুণ্ঠাবোধ করেননি বার্নাবুর পারফরম্যান্সের পর।

১৫
গোল করার অনবদ্য কৃতিত্বও রিয়াল মাদ্রিদ সফরের ক্লাসিকোয় মেসি রচনা করেছেন ইতিহাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে।

১৫
বা ততোধিক গোল একটানা ১০ লা লিগার মওসুমে পেলেন মেসি প্রথম ফুটবলার হিসেবে।

১৭
তে পৌঁছে গেছে একমাত্র ফুটবলার হিসেবে মেসির লা লিগার ক্লাসিকো গোল।

৫৪
মেসির ২০১৭ সালের গোলসংখ্যা দখলে নিয়েছে সর্বোচ্চ সাফল্যের রেকর্ড।

২০০
তে উন্নীত মেসির বার্সেলোনা সতীর্থদের দিয়ে গোল করানোর রেকর্ড। এক পায়ে বুট নিয়ে তিনি গত শনিবারের ক্লাসিকোয় সফরকারীদের তৃতীয় গোলটি করান ভিদালকে নিয়ে। সতীর্থকে বল সাপ্লাই দেয়ার আগে মার্সেলোর ট্যাকেলে মেসি এক পায়ের বুট হারিয়ে বসেন!

 

মেসির অন্য রকম উদযাপন

রিয়াল মাদ্রিদের ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে মেসি ম্যাজিকে দুর্দান্ত জয় পায় বার্সেলোনা। ৩-০ গোলে রোনালদোদের হারানোর ম্যাচে একটি গোল করেন মেসি। গোল করার পর তার উদযাপনটিও ছিল ভিন্ন ধরণের। এর আগের দেখায়ও এই মাঠে মেসির উদযাপনটি ছিল চোখে পড়ার মতো। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

৬৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে দলের দ্বিতীয় গোলটি করার পর মেসি ছুটে যান গ্যালারির দিকে। রিয়াল ভক্তদের মাঝে খুঁজতে থাকেন বার্সা সমর্থকদের। আর তাদরে দেখা পেয়েই কুর্নিশ করতে করতে প্রথমে একটা চুমু, তারপর আস্তে আস্তে দুই হাত মাথার উপরে দুই দিকে উঁচিয়ে ধরেন!

যেন বলতে চাইলে, শুধু তোমাদের জন্যই আমার এই চেষ্টা!

সোমবার নিজেদের মাঠে পাত্তা পায়নি রোনালদোর রিয়াল। ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে বার্সার কাছে। নিজের একটি গোল ছাড়াও সতীর্থের একটি গোলে অবদান ছিল মেসির।