ভ্রমণ বিষয়ক কয়েকটি টিপস….

শাহাদাত হোসেন:::::::::::::::::::::::::::::::::::

১. অহেতুক লাগেজ ভারী করবেন না। না নিলেই নয়, কেবল এমন জিনিস সাথে নিন। মনে রাখবেন, যার লাগেজ যত হালকা, তার ভ্রমণ তত স্বাচ্ছন্দ। ভারী লাগেজ ভ্রমণের আনন্দকে ব্যাহত করে।

২. কোথায় কোথায় যাবেন তার একটা রোডম্যাপ আগে থেকেই করে নিন। জায়গাগুলো নিয়ে পড়ুন, প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করুন। অভিজ্ঞদের সাথে আলাপ করুন।

৩. ভাষা দক্ষতা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ইংরেজিতে দক্ষতা দুনিয়াজুড়েই কাজে লাগবে। সাথে সংশ্লিষ্ট এলাকার ভাষা সম্পর্কে জ্ঞান খুব কাজে দিবে।

৪. বিদেশে পাসপোর্ট সবসময় সাথে রাখবেন এবং পাসপোর্টের ব্যাপারে সতর্ক থাকবেন। মনে রাখবেন, বিদেশে পাসপোর্ট হলো প্রাণভোমরা। হারিয়ে ফেললে মহাবিপদ।

৫. যাদের নিয়মিত ঔষুধ খাওয়ার ব্যাপার আছে তারা হিসাব করে প্রয়োজনীয় ঔষধ সাথে নিবেন।

৬. মাঝারি মানের হোটেলে থাকুন। অতি অভিজাত হোটেল অকারণ খরচ বাড়ায় এবং স্বাভাবিক জীবন কেমন তা দেখার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করে।

৭. ভ্রমণে বের হলে অনেক কিছুই পছন্দ মতো হবে না। থাকা খাওয়ায় অবশ্যই সমস্যা হবে। মেনে নিন।

৮. জানার জন্য একা ভ্রমণ ভালো। আনন্দের জন্য সবাই মিলে ভালো। তবে সঙ্গী নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ। সমমনা না হলে সমস্যা হয়।

৯. ছবি তোলার জন্য ভালো ক্যামেরা বা স্মার্ট ফোন তো এখন থাকেই। সাথে পাওয়ার ব্যাংক নিলে ভালো হয়। কারণ অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অধিক প্রয়োজনের সময় এগুলোর চার্জ শেষ হয়ে যায়। দরকারি ছবি তোলা যায় না।

১০. বেশিরভাগ দর্শণার্থী ঐতিহাসিক স্থানগুলোতে গিয়ে গভীরভাবে দেখার চেয়ে ছবি তোলাকে বেশি গুরুত্ব দেয়। ফলে ছবি তোলা হয়, দেখা হয় না। ছবি তুলুন। একই সঙ্গে গভীরভাবে দেখুন। দেখার চোখ তৈরি করুন।

১১. সব সময় ট্যাক্সি, উবার বা গাড়িতে চলাচল করবেন না। টাউন সার্ভিস বাস, রিকশা বা মেট্রোতেও চড়ুন। শহরের বেশিরভাগ মানুষ যে যান ব্যবহার করে সেই যান ব্যবহার করুন। সম্ভব হলে প্রচুর হাটুন। চারপাশটা দেখুন। দোকান, যানবাহন, মানুষের হাটাচলা, দরদাম, আলাপ, প্রবণতা লক্ষ্য করুন। বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের সাথে আলাপ করুন।

১২. বিখ্যাত ও আলোচিত যায়গার পাশাপাশি, কাঁচা বাজার, মাছ-মাংসের দোকান, পোশাকের দোকান, লাইব্রেরি, বইয়ের দোকান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যান।

১৩. পড়তে মজা লাগবে এমন দুয়েকটা বই সাথে রাখুন। ভ্রমণের ফাঁকে ফাঁকে অবসরে পড়বেন। ভালো লাগবে।

১৪. গভীর দৃষ্টি দিয়ে সব দেখুন, বিশ্লেষণ করুন, নোট নিন, লিখুন।

একটু কষ্ট করে এগুলো মনে রাখলে আপনার ভ্রমণ হবে অধিক স্বার্থক ও পূর্ণ।

লেখক : সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট জাজ