নিজামীর আপিল শুনানি মঙ্গলবার

মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর আপিলের শুনানি আগামীকাল মঙ্গলবার নির্ধারণ করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে নিজামীর আইনজীবীকে হয়রানি না করার আবেদনের শুনানিও এদিন হবে। সোমবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন : বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। এ সময় মতিউর রহমান নিজামীর পক্ষে অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন ও রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম উপস্থিত ছিলেন।

২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর মতিউর রহমান নিজামীর মামলায় রায়ে মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। রায়ে ১৬টি অভিযোগের মধ্যে আটটি অভিযোগ প্রমাণিত হয়। চারটি অভিযোগের মধ্যে বুদ্ধিজীবী গণহত্যা, হত্যা, ধর্ষণ, লুণ্ঠন, সম্পত্তি ধ্বংস, দেশত্যাগে বাধ্য করার অভিযোগে নিজামীকে ফাঁসির দণ্ড দেওয়া হয়। এ ছাড়া চারটি অভিযোগের মধ্যে আটক, নির্যাতন, হত্যাসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ষড়যন্ত্র ও সংঘটনে সহযোগিতার দায়ে তাঁকে দেওয়া হয়েছে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। বাকি আট অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে ওই সব অভিযোগ থেকে খালাস দেওয়া হয়।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল ১-এর দেওয়া এ রায়ের বিরুদ্ধে একই বছরের ২৩ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেন জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামী। ৬২৫২ পৃষ্ঠার আপিলে ফাঁসির আদেশ বাতিল করে খালাস চেয়েছেন নিজামী। মোট ১৬৮টি কারণ দেখিয়ে এ আপিল করা হয়। এ ছাড়া গত ২৫ অক্টোবর মতিউর রহমান নিজামির করা আবেদনের ভিত্তিতে তার আইনজীবী আসাদ উদ্দিনকে হয়রানি না করার নির্দেশ দিয়েছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সম্প্রতি ঢাকা থেকে সিরাজগঞ্জে বাড়ি যাওয়ার পথে যমুনা সেতুর কাছ থেকে অ্যাডভোকেট আসাদকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাকে ষড়যন্ত্রের অভিযোগে করা একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে রিমান্ডেও নেওয়া হয়।