বিচার চাই না- এ কথা ক্ষোভ থেকে বলিনি : দীপনের বাবা

দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত বিজ্ঞান লেখক অভিজিৎ রায়ের বইয়ের প্রকাশক জাগৃতি প্রকাশনীর কর্ণধার ফয়সল আরেফিন দীপনের লাশ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আজ রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে দীপনের লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। এর পর দুপুর পৌনে ১২টায় তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ সময় দীপনের বাবা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ও বিশিষ্ট লেখক আবুল কাসেম ফজলুল হক, দীপনের শ্বশুর ডা. মো. জালালুর রহমান ও ঢামেকের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় এক প্রতিক্রিয়ায় দীপনের বাবা সাংবাদিকদের বলেন, ”আমি গতকালও বলেছি, আজও বলছি। আমি বিচার চাই না। এ কথা আমি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলিনি। বিচার-বিবেচনা করে বলেছি। দেশের মধ্যে শুভবুদ্ধির উদয় হলে এ সমস্যার সমাধান হবে।” তিনি বলেন, ”আদর্শগত ও রাজনৈতিকভাবে এ সমস্যার সমাধান করতে হবে। তার পর আইনগতভাবে। নইলে এ সমস্যার সমাধান হবে না।” সাবেক এই শিক্ষক বলেন, ”আমি নিয়মানুযায়ী মামলা করব। কারণ আমি আইন মেনে চলি।” ঢামেক হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. কাজী আবু সামা দীপনের লাশের ময়নাতদন্ত করেন।

দীপনের বন্ধু আজিজুল ইসলাম ওয়ালী জানান, এখান থেকে দীপনের লাশ তার বাসা পরিবাগের গার্ডেন টাওয়ারে নিয়ে যাওয়া হয়। এর পর বাদ জোহর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দীপনের জানাজা হবে। জানাজা শেষে তার লাশ আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হবে। শনিবার বিকেলে শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে জাগৃতির কার্যালয়ে ঢুকে দুর্বৃত্তরা দীপনকে কুপিয়ে জখম করে দরজা বন্ধ করে চলে যায়।