টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড কিছুটা বদলাবে

নতুন বেতন কাঠামোতে টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। তবে তা বিদ্যমান কাঠামোর মতো নয়। এ ক্ষেত্রে কিছুটা বদলানো হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

গতকাল সন্ধ্যায় সচিবালয়ে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) নির্বাহী পরিচালক ড. রাকেশ মোহন এবং যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক উন্নয়নবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ও সংসদ সদস্য ডেসমন্ড অ্যাঙ্গাস সোয়ানি টিডির নেতৃত্বে এক প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকের পর অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ তথ্য জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড কিছুটা পরিবর্তন করব। এ বিষয়ে কমিশনের বক্তব্য ছিল, টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বহাল থাকলে বেতন দিতে চাপ পড়বে। এ ছাড়া সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তো পদোন্নতি পায়ই।’

অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমারও ধারণা ছিল, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে উচ্চতর স্কেলে চলে যাবে। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে, দীর্ঘদিন ধরে একই পদে যাঁরা কাজ করছেন, তাঁদের জন্য একটা জাম্প থাকা দরকার।’

আজ সোমবার নতুন বেতন কাঠামো অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভায় উঠছে না জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, আগামী মাসে এটি মন্ত্রিসভায় উঠবে।

আগামী ২২ সেপ্টেম্বর দেশের বাইরে যাওয়ার কথা রয়েছে অর্থমন্ত্রীর। এর আগেই নতুন বেতন কাঠামো মন্ত্রিসভা অনুমোদন দেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটা যেকোনো দিনের ব্যাপার।

অর্থমন্ত্রী বলেন, পে-স্কেল নিয়ে যে ঝামেলা ছিল তা অনেকটাই মিটে গেছে। তবে যেহেতু নীতিনির্ধারণী সিদ্ধান্ত, তাই একটু সময় লাগবে। কারণ এটা অনেক বড় ও অনেক বিষয় এখানে জড়িত। সারসংক্ষেপের যে খসড়া তৈরি করা হয়েছে, তার কয়েকটা জায়গা ঠিক করতে হবে। চূড়ান্ত হওয়ার আগে এটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যাবে। সেখান থেকে ফিরে এলে এটা মন্ত্রিসভায় উঠবে। আরো এক সপ্তাহের মতো সময় লাগবে।

সূত্রঃ কালের কন্ঠ