জামা খুললে সৌরভকেই মানায়: মমতা

‘জামা খুললে একমাত্র সৌরভ গাঙ্গুলীকেই মানায়, অন্যকে নয়। ছবি তুলতে গিয়ে যে কোন দিন ছবি হয়ে যাবেন সেটা মাথায় রাখবেন’। কংগ্রেস কর্মীদের ওপর পুলিশের লাঠিপেটার প্রতিবাদ করতে গিয়ে জামা খুলে বিক্ষোভ করায় পশ্চিমবঙ্গের কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে এভাবেই কটাক্ষ করলেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার দক্ষিণ কলকাতার নজরুল মঞ্চ থেকে অধীর চৌধুরীকে কটাক্ষ করে মমতার মন্তব্য, ‘আপনারা আবার কেউ কেউ সৌরভ গাঙ্গুলীর কায়দায় ফটো তুলতে শুরু করেছেন। যা সৌরভ গাঙ্গুলীকে মানায়, তা অন্যকে মানায় না। মনে রাখতে হবে, বনে বন্য পশুকে মানায় আর বাস্তবে বাস্তববাদীদের মানায়। মনে রাখতে হবে, এক একটা জিনিসের এক একটা জায়গা আছে। আমি যদি মনে করি ফটো তুলবার জন্য আমি কোনদিন মাথা কামিয়ে ফেললাম, জীবনে একবারই ছবি হবে, আমি কোনদিন ফটো তোলার জন্য একদিন শুধু জামা পড়ে ছবি তুললাম, ছবি একবারই হবে, একদিন শুধু প্যান্ট পরে তুললাম, ছবি একবারই হবে। একদিন শুধু গেঞ্জি পরে তুললাম, ছবি একবারই হবে, একদিন শুধু চুলটা লম্বা করে তুললাম, ছবি একবারই হবে। সুতরাং এটা করতে করতে নিজেই যে কবে ছবি হয়ে যাবেন, ছবির কাছে উপহার হয়ে এটা মনে রাখবেন’।

মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পর অধীর চৌধুরীও তার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এভাবে, ‘মুখ্যমন্ত্রী যদি কাউকে বলেন ছবি তুলতে তুলতে একদিন ছবি হয়ে যাবে। তাহলে তার ব্যখ্যাটা আমাদের সকলের করা দরকার। মুখ্যমন্ত্রী কি ভয় দেখাতে চাইছেন? উনি কি আমাদের মেরে দিতে চাইছেন?’ তিনি আরও বলেন, আজকে সারা পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে কংগ্রেস কর্মীদের ওপর পুলিশ যেভাবে অমানবিক নির্যাতন করেছে তার সঙ্গে ইংরেজ শাসনের সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে। তারপরও মুখ্যমন্ত্রীর এই হুঙ্কার- উনি কাকে ভয় দেখাচ্ছেন? এনে রাখা দরকার যে বাংলা শুধু ওনার (মমতা) একার নয় যে যাকে তাকে উনি ভয় দেখাবেন? আসলে উনি নিজেই ভয় পেয়ে গেছেন।’

ঘটনার সূত্রপাত এদিন সকালে। পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর জেলার সবং-এ এক ছাত্র হত্যার প্রতিবাদে কংগ্রেসের ডাকা আধা বেলা হরতালকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর। সকাল নয়টা নাগাদ কংগ্রেস কর্মীদের পিকেটিং ভেঙে বহরুমপুরে ভূমি ও ভূমি রাজস্ব কর্মকর্তার অফিসে ঢুকতে যান অতিরিক্ত জেলাশাসন অরবিন্দ কুমার মীনা। কিন্তু কংগ্রেস কর্মীরা তাকে ঢুকতে বাধা দিলে পুলিশ তাদের লাঠিপেটা করে বলে অভিযোগ। ওই খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসে অধীর চৌধুরী। প্রতিবাদে জামা খুলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। একসময় পুলিশকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে তিনি বলেন, ‘ক্ষমতা থাকলে পুলিশ গুলি চালাক’। এর কিছু পরেই বিভিন্ন গণমাধ্যমে অধীরের জামা খোলা ওই ছবি দেখা যায়। সেই ছবিকে লক্ষ্য করেই মুখ্যমন্ত্রীর ওই কটাক্ষ!