মন্ত্রী স্মৃতির পোশাক পাল্টানোর দৃশ্য ধারণ: গ্রেফতার ৪

ট্রায়াল রুমে গোপন ক্যামেরায় ভারতের কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী স্মৃতি ইরানির পোশাক পাল্টানোর দৃশ্য ধারণ করার ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  তারা হলেন  উত্তর গোয়ার ফ্যাবইন্ডিয়া  নামের দোকানের কর্মী। দোকানটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

পুলিশ সুপার কার্তিক কশ্যপের বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনে প্রকাশিত খবরে জানানো হয়, শনিবার ফ্যাবইন্ডিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। গ্রেপ্তার হওয়া চার কর্মীর ব্যাপারে তদন্ত চলছে।

শুক্রবার দুপুরে ভারতের পর্যটন রাজ্য উত্তর গোয়ার কালাঙ্গুত নামের ছোট শহরে ওই ফ্যাবইন্ডিয়ায় কেনাকাটা করতে গিয়ে গোপন ক্যামেরার শিকার হন স্মৃতি ইরানি।

কালাঙ্গুতে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) এমএলএ মাইকেল লোবো মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী স্মৃতি ইরানির পক্ষ থেকে কালাঙ্গুত পুলিশের কাছে অভিযোগ  করেন। ডিএসপি নেলসন আলবাকুয়েরক জানান, মামলাটি ৩৫৪ সি ধারা (গুপ্তস্থান থেকে যৌনক্রিয়া দেখা) এবং ৫০৯ ধারায় (নারীর শালীনতা নষ্ট করা) তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাতে পর্যটন রাজ্য উত্তর গোয়ার কালাঙ্গুত গিয়েছিলেন স্মৃতি ইরানি। শনিবার দুপুরে তিনি ফ্যাবইন্ডিয়ায় পোশাক কিনতে যান। সেখানে কয়েকটি পোশাক বেছে নিয়ে তিনি ট্রায়াল রুমে ঢোকেন। এরপর তার নজরে পড়ে লুকানো ক্যামেরাটি। দ্রুত বের হয়ে এসে ইরানি স্বামীকে ডেকে পাঠান। সব শুনে ক্রুদ্ধ স্বামী জুবিন ইরানি দোকানের কর্মীদের ওপর চড়াও হন। পরে তাদের ভিডিওচিত্র দেখাতে বাধ্য করেন। এতে দেখা যায়, সত্যি সত্যিই মন্ত্রীর কাপড় পাল্টানোর দৃশ্য ধারণ করা হচ্ছিল।

ফ্যাবইন্ডিয়ার ট্রায়াল রুমের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, সেটি এমনভাবে বসানো, যাতে করে যিনি পোশাক বদলাচ্ছেন তার পেছন দেখা যায়। একই সঙ্গে আয়নায় তার প্রতিচ্ছবিও ক্যামেরায় ধরা পড়ে।

ফ্যাবইন্ডিয়ার কর্মকর্তারা পুলিশকে জানান, চুরি বন্ধের জন্য ক্যামেরাটি বসানো হয়েছে। আবার ফ্যাবইন্ডিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক উইলিয়াম বিসেল বলেন, দোকানের গুদামঘরে নিরাপত্তাবিষয়ক ক্যামেরা রয়েছে। কিন্তু ট্রায়াল রুমে নেই।

গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী ও বেঙ্গালুরুতে নিযুক্ত বিজেপির নির্বাহী লক্ষ্মীকান্ত পরেশকার বলেন, দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেয়া হবে।