ভ্রমণে যেসব বিষয় খেয়াল রাখা উচিত

দেশে এবং দেশের বাইরে যেখানেই ভ্রমণ করুন না কেন ভ্রমণের আগে থাকা প্রয়োজন কিছুটা প্রস্তুতি। কারণ ভ্রমণের প্রস্তুতির ওপর নির্ভর করবে ভ্রমণ কতটা আনন্দময় হবে।

ভ্রমণে পরিবহন হিসেবে বাস-লঞ্চ-ট্রেন বা বিমানে ভ্রমণ করবেন কি না, এটা নির্বাচন করা জরুরি। তবে আপনি কোন ধরনের পরিবহনে ভ্রমণে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন তার ওপরই নির্ভর করবে পরিবহনের বিষয়টি। তবে জীবনের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার দিকে খেয়াল রেখে ভ্রমণ করতে হবে।

ভ্রমণের আগে যে বিষয়গুলো মাথায় রেখে বের হবেন তা হলো- যেখানে যাবেন সেখানকার আবহাওয়া ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পর্কে ভালো করে জেনে দিন। পাশাপাশি সেখানকার জরুরি ফোন নাম্বার এবং লোকেশন সম্পর্কে তথ্য আগে থেকে সংগ্রহ করুন। হাসপাতাল, স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র, আবাসিক হোটেল, ব্যাংক ও পুলিশের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করতে পারেন। সাথে কী কী নেবেন তা নির্ভর করবে আপনি কোথায় বেড়াতে যাচ্ছেন তার ওপর। যেমন পাহাড়ি অঞ্চলে বেড়াতে গেলে ব্যাগের ওজন যত কম রাখা যায় ততই ভাল। তবে যেখানেই যান না কেন ব্যাগ ভর্তি জিনিস না নিয়ে দেখেশুনে দরকারি জিনিস নেয়াই উত্তম। একটি ভারী লাগেজ বা ট্রাভেলিং ব্যাগ বহন করতে গেলে আপনার ভ্রমণ অস্বস্তিকর মনে হতে পারে। তাই ব্যাগ গোছানোর সময় প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সবার আগে ঢুকিয়ে ফেলুন।

ভ্রমণে প্রয়োজনীয় জিনিসের মধ্যে টুথপেস্ট, ব্রাশ, ইনার, গামছা বা তোয়ালে, ক্যাপ, জুতো, বেল্ট, সানগ্লাস ইত্যাদি ছাড়াও আনুষঙ্গিক আর কী কী হতে পারে তার একটা লিস্ট করুন। সাথে একটি পানির বোতল ব্যাগে ঢুকিয়ে ফেলুন। লিস্ট ধরে টিক চিহ্ন দিয়ে একটি একটি জিনিস ব্যাগে নিন, এতে দরকারি কোনো কিছুই বাদ পরবে না।

প্রয়োজনীয় জামাকাপড়, জুতা, কসমেটিকস আলাদা করে প্যাক করুন, যাতে স্থান সঙ্কুলান হয়। রোদ থেকে বাঁচার জন্য ক্যাপ নেবেন। রোদ থেকে চোখ রক্ষা করতে চশমা খুব ভালো কাজে দেবে। শিশুদের পোশাক, জুতা আলাদা ব্যাগে নিতে পারেন। জুতার ব্যাপারে বাড়তি মনোযোগ দিন।

আরামদায়ক কেডস হলে ভালো হয়। তালিকায় থাকবে প্রয়োজনীয় ওষুধ, মোবাইল ফোন ও চার্জার। স্মৃতিগুলো ধরে রাখার জন্য চেষ্টা করবেন একটি ভালো ক্যামেরা সাথে নিতে। আর তার সাথে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যেন ক্যামেরার ব্যাটারির চার্জ ফুল থাকে। সাথে নিতে পারেন পাওয়ার ব্যাংক ব্যাটারি। রাখতে পারেন একটি টর্চ লাইট ও এক্সট্রা ব্যাটারি, যেকোনো সময় দরকার হতে পারে।

জাতীয় পরিচয়পত্র ও এক কপি ছবি সাথে রাখুন। ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট এবং এমনকি ক্রেডিট কার্ড অতি যত্নসহকারে রাখুন। প্রয়োজনের চেয়ে অতিরিক্ত কিছু টাকা সাথে রাখুন। কোন হোটেলে থাকবেন, সেই হোটেলের নাম ও ঠিকানা বাড়ির লোকদের জানিয়ে দেবেন। ভ্রমণের সময় গাড়ির নাম্বারটাও জানা প্রয়োজন। যেখানে বেড়াতে যাচ্ছেন সেখানকার জরুরি ফোন নাম্বার এবং লোকেশন সম্পর্কে তথ্য আগে থেকে সংগ্রহ করে রাখুন। হঠাৎ করে উটকো কোনো ঝামেলায় জড়িয়ে যেতে পারেন। সেগুলো কিভাবে সামাল দেবেন সে ব্যাপারটিও মাথায় রাখতে হবে। তাহলেই আপনার ভ্রমণ হবে আনন্দময় ও সুন্দর।